কে বলেছে শুধুমাত্র বৃষ্টি পড়লেই খিচুড়ি খাওয়া যায়৷ চিকেন-খিচুড়ি এমন এক পদ যা আপনি আপনার অতিথি-প্রিয়জনকে লাঞ্চ হোক বা ডিনারে খাওয়াতেই পারেন৷ আপনারও সময়ও বাঁচবে, আরও অতিথি এই পদ খেয়েই একগাল হেসে বলবেন লা-জবাব৷ তবে কীভাবে আপনি তৈরি করবেন তার ওপরই কিন্তু নির্ভর করছে প্রশংসা পর্বটি৷ নীচে রইল সেই সিক্রেট-

চিকেন খিচুড়ি তৈরির উপকরণ: ৫০০ গ্রাম মুরগির মাংস – আদা-রসুন বাটা ৪ চা চামচ – এলাচ গুঁড়ো আধা চা চামচ – লবণ স্বাদমতো – টক দই হাফ কাপ, মসলার জন্য – ২ টি পেঁয়াজ কুচি – ৩/৪ টি কাঁচা মরিচ – ৩ টি বড় রসুনের কোয়া – ২ টি লবঙ্গ – ৩ টি টমেটো খিচুড়ির জন্য – ১/৪ কেজি বাসমতী চাল, – ১/৪ কেজি বিভিন্ন ডাল (মুগ, মসুর, বুট) – আদা কুচি ১-২ চা চামচ – ২ টি পেঁয়াজ কুচি – সয়াবিন তেল – লবণ স্বাদমতো – আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়ো – ২ টি শুকনো মরিচ – ২ টি ফালি করা কাঁচা মরিচ – ২ খণ্ড দারুচিনি

পদ্ধতি- চিকেনের জন্য রাখা সব মশলা দিয়ে মাখিয়ে চিকেন ৩০ মিনিট ম্যারিনেট করে রাখুন। টমেটো বাদে পেষানো মসলার জন্য রাখা সবকিছু একসঙ্গে গ্রাইন্ডারে পিষে নিন। টমেটো আলাদা করে পিষে নিন। এবার গ্যাস ওভেনে প্যান দিয়ে তেল গরম করে নিন। এতে পেষানো মসলা ও টমেটো দিয়ে নাড়তে থাকুন।

কিছুক্ষণ পরে এতে ম্যারিনেট করা চিকেন দিয়ে ও সামান্য জল দিয়ে ভালো করে কষাতে থাকুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে একটু ঝোল ঝোল থাকতেই লবণের স্বাদ বুঝে নিয়ে তা গ্যাস থেকে নামিয়ে রাখুন।

এবার অন্য একটি প্যানে তেল গরম করে নিয়ে এতে শুকনো মরিচ দিয়ে নেড়ে নিন। এতে দিন আদা ও পেঁয়াজ কুচি, তারপর এক এক করে দারুচিনি, মরিচ ফালি, হলুদ গুঁড়ো ও লবণ দিয়ে নেড়ে মসলা কষিয়ে নিন। এরপর চাল ও ডাল একসঙ্গে ভালো করে ধুয়ে প্যানে দিয়ে দিন। ভালো করে নেড়ে কষাতে থাকুন। কষানো হয়ে গেলে এতে জল দিয়ে খিচুড়ি রান্না করে নিন।

রান্নার শেষ পর্বে খিচুড়িতে দিয়ে দিন রান্না করে রাখা চিকেন। একটু নেড়ে নিয়ে দমে বসিয়ে দিন খিচুড়ি। ৫-১০ মিনিট পর দম থেকে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন লা-জবাব চিকেন খিচুড়ি৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here