পন্ডিত অনিমেষ শাস্ত্রী

রাজনীতি তে খাদ্য নিয়ে বিতর্ক নতুন কিছু নয়, ইদানিং এই প্রবণতা অনেক বেড়েছে, যদিও আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি আমিও কি খাবো, কি পড়বো বা কি লাইফ স্টাইল হবে তা আমিও স্বাধীন ভাবে নির্বাচন করবো,

তবে ধর্ম এবং শাস্ত্র কে যখন মাঠে নামানো হচ্ছে এবং অনেক অবাঞ্চিত বিষয় কে উদ্ভট যুক্তি দিয়ে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা চলছে এবং তা নিয়ে আমাদের ধর্মের অনেকের মধ্যেই নানান সংশয় এবং বিভ্রান্তি দেখা দিচ্ছে তখন এই বিষয়ে কয়েকটা কথা বলা আমার কর্তব্য মনে করি…

হ্যাঁ স্বীকার করতেই হয় আমাদের পুরানে এবং রামায়নে ও মহা ভারতে কথাও কোথাও গোমাংস বা বৃষ অর্থাৎ মহিষের মাংসর উল্লেখ আছে…

কালিকা পুরানের একাধিক শ্লোকে দেবী আদি শক্তির পূজায় গরু,মহিষ, ছাগল ইত্যাদি প্রাণীর বলী দেয়ার কথা বলা হয়েছে, তবে তা বিশেষ পক্রিয়ায় উৎসর্গ করা বা একটি শাস্ত্রীয় পদ্ধতি যা আজকের নির্বিচারে ক্ষুদ্র স্বার্থে প্রাণী হত্যাকে জাস্টিফাই করেনা…

ব্রহ্মবৈবর্ত পুরানের প্রকৃতিখণ্ডের, ২৭ তম অধ্যায়ে গোমেধ যজ্ঞের উল্লেখ আছে তবে সেকালে যজ্ঞে উৎসর্গ করা প্রাণী কে উদ্ধার করার অলৌকিক ক্ষমতা মুনি ঋষি দের ছিলো, উৎসর্গ করা প্রাণীদের আত্মার উন্নতি ঘটানোর দায়িত্ব তারা নিতে পারতেন তাদের সাথে আমাদের তুলনা করা যায়না….

বিষ্ণুপুরাণের ৩য় অংশের ১৬ তম অধ্যায়ে শ্রাদ্ধে ব্রাহ্মণ দের গব্য প্রদানের কথা বলা হয়েছে অনেকের মতেই গব্য মানে গোমাংস তবে গব্য পায়েস ও হতে পারে…. তাই সিদ্ধান্ত নেয়া সহজ নয়….

এবার যারা রামায়ন ও মহাভারত নিয়ে বেশি চিন্তিত তাদের বলি, রামায়ণে  সীতা গঙ্গা নদী পার হওয়ার সময় গঙ্গাকে গরু নিবেদন করার কথা বলেন ঠিকই তবে এই নিবেদন করা মানে জবাই করা বা কেটে কুটে রোস্ট, কাবাব বানানোর কথা বলা হচ্ছে এমনটা ভাবার কোনো কারন নেই…

অনেকেই আবার অতি উৎসাহিত হয়ে বলেন মহাভারতের নানাস্থানেই গোহত্যা ও গোমাংস ভক্ষণের কথা পাওয়া যায়.. হ্যাঁ রন্তিদেব নামে এক ধার্মিক রাজার কথা বারবার মহাভারতে উক্ত হয়েছে। তিনি প্রচুর পশু হত্যা করে মানুষদের খাওয়াতেন, তবে সেই পশুগুলোর মধ্যে গরুও ছিল কিনা এবং থাকলে করা তা খেতো এর কোনো স্পষ্ট ব্যাখ্যা নেই….

যারা ভেজাল মনু সংহিতা তুলে হিন্দুদের গোমাংস খাওয়ার যুক্তি দেন , তাদের বেশি কিছু বলবো না,গীতা প্রেসের আসল মনুসংহিতা একটু কষ্ট করে পড়লেই তারা তাদের উত্তরে পেয়ে যাবেন…

এবার যদি শাস্ত্র কে সরিয়ে রেখে একটু অন্য ভাবে দেখি দেখা যাবে, গরু বলুন মোষ বলুন, মৃত অবস্থায় যতটা কার্যকরী তার থেকে জীবিত অবস্থায় অর্থনৈতিক ভাবে অনেক বেশি কার্যকরী, অনলাইন ঘুটে, গোমূত্র, দুধ আজ সবই বিকোচ্ছে চড়া দামে..

আর মানবিক দিক! ওটা ব্যক্তির মানসিকতার উপরেই নাহয় ছেড়ে দেয়া যাক!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here