রাজনৈতিক বিশ্লেষণ

কলমে – পন্ডিত অনিমেষ শাস্ত্রী


বর্তমানে সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জী বনাম  সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জী দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে  সরগরম  বঙ্গ রাজনীতি|স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন ওঠে  কে ভুল আর কে ঠিক? আসলে  বিষয় টি ঠিক ভুলের নয় , প্রশ্নটা রাজনৈতিক সৌজন্যের|

কিছুদিন ধরেই  অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের
বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছে সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে। অভিষেককে নেতা মানতে রাজি নন বলে সাফ জানিয়েছেন তিনি। স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে কল্যাণের
‘অভিষেক-বিরোধিতা’। তারপর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইয়ের ফেসবুক পোস্ট ঘিরে জল্পনা বাড়ল আরও। অভিষেকের ভাই তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের সদস্য আকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পোস্টে লেখা ‘শ্রীরামপুর নতুন সাংসদ চায়’। শ্রীরামপুরেরই সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই বুঝতে অসুবিধা হয় না যে, অভিষেক-শিবিরে বাড়ছে কল্যাণ-বিরোধিতা।

এখানেই  শেষ  নয় সম্প্রতি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের আর এক সদস্যের টুইটেও ভরে গিয়েছে কল্যাণ বিরোধী পোস্ট। মুখ্যমন্ত্রীর বোনের মেয়ে অদিতি গায়েনও একাধিক পোস্টে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেছেন। তিনি একের পর এক ভিডিয়ো টুইট করেছেন, যেখানে কল্যাণকে দেখা যাচ্ছে। কোনওটিতে কল্যাণকে গান গাইতে দেখা যাচ্ছে, কোনওটিতে নাচতে দেখা যাচ্ছে|

আসলে এই ধরণের  বিতর্কিত ঘটনা দলের  ভাবমূর্তি নষ্ট করে  তাই দ্রুত হস্তক্ষেও করেছে উচ্চস্তরের নেতৃত্ব|পার্থ চট্টোপাধ্য়ায় হস্তক্ষেপ করলেও বিতর্ক যে থামেনি তা স্পষ্ট|

একদিক দিয়ে এটা যেমন সত্য যে দলের বহু দিনের যোদ্ধা কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় এবং মমতা ব্যানার্জীর অত্যন্ত বিশস্ত তেমনই সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জীর কতৃত্ব ও নেতৃত্বকেও অস্বীকার করা যায় না|কল্যাণ বাবুর যেমন  দলে সন্মান আছে , মর্যাদা আছে তেমনই  তরুণ প্রজন্মের আইকন অভিষেক কে সমীহ করার ও প্রয়োজন আছে  বিশেষ করে যখন তার ডায়মন্ড মডেলের সাফল্যর পর |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here